আজ : ০৪:৪০, ফেব্রুয়ারি ১৭ , ২০১৯, ৫ ফাল্গুন, ১৪২৫
শিরোনাম :

ঠাকুরগাঁওয়ে বিজিবির গুলিতে নিহত ৩, আহত ১৭


আপডেট:১১:৪৮, ফেব্রুয়ারি ১২ , ২০১৯
photo

ঢাকা প্রতিনিধি: ঠাকুরগাঁওয়ের হরিপুর উপজেলার সীমান্তবর্তী এলাকায় বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) সঙ্গে গ্রামবাসীর রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ হয়েছে।এসময় বিজিবির গুলিতে তিনজন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন অন্তত ১৭ জন।

মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে হরিপুর উপজেলার বহরমপুর সীমান্তবর্তী এলাকায় এ সংঘর্ষ হয়।নিহতরা হলেন-সাদেক, নবাব ও জয়নুল। বিজিবির দাবি, নিহতরা সবাই চোরাকারবারী। স্থানীয়রা জানান, নিহতদের মধ্যে নবাব ও জয়নুল ছাত্র। নবাব অনার্সে পড়েন, আর জয়নুল দ্বিতীয় শ্রেণিতে পড়ে। অপরজন সাদেক স্থানীয় কৃষক।

বিজিবি সূত্রে জানা গেছে, বহরমপুর সীমান্ত এলাকা দিয়ে দিয়ে গরু চোরাকারবারীরা ভারত থেকে গরু আনে। ওই গরু উদ্ধারে বিজিবি সদস্যরা অভিযানে যায়। এসময় চোরাকারবারীরা বিজিবির ওপর অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে হামলা চালায়। বিজিবি সদস্যরাও আত্মরক্ষার্থে গুলি চালায়।

ঠাকুরগাঁও জেলার পুলিশ সুপার মো. মনিরুজ্জামান জানান, বিজিবির সদস্যরা চোরাই গরু উদ্ধার করতে গেলে চোরকারবারীরা বাধা দেয়। এসময় আশপাশের লোকজনও তাদের সঙ্গে যোগ দিয়ে বিজিবি সদস্যদের ঘেরাও করে রাখে। পরে বিজিবি সদস্যরা আত্মরক্ষার্থে গুলি চালায়। এতে এক পথচারীসহ তিনজন নিহত হন।

তবে গ্রামবাসীর দাবি, বিজিবির সদস্যরা কৃষকের বাড়ি থেকে গরু নিয়ে যাচ্ছিলেন। এসময় স্থানীয়রা এতে বাধা দেয়। পরে বিজিবি গুলি ছুড়লে গ্রামবাসীর সঙ্গে সংঘর্ষ বেধে যায়। এতে দুই ছাত্রসহ তিনজন নিহত হন।আহত ১৭ জনকে উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এদিকে সংঘর্ষের ঘটনায় এলাকায় থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে। জেলা প্রশাসক কামরুজ্জামান পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ঘটনাস্থল গেলে গ্রামবাসী তাকে অবরুদ্ধ করে রাখে।তাৎক্ষণিকভাবে ঘটনা সম্পর্কে জানতে বিজিবির কোনো সদস্যের বক্তব্য জানা যায়নি।



সাম্প্রতিক খবর

আবুধাবি প্রতিরক্ষা প্রদর্শনীতে অংশ নিলেন প্রধানমন্ত্রী

photo আন্তর্জাতিক ডেস্ক: সংযুক্ত আরব আমিরাতের আবু ধাবিতে আন্তজার্তিক প্রতিরক্ষা প্রদর্শনীতে অংশ নিয়েছেন সফররত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সংযুক্ত আরব আমিরাতের ভাইস প্রেসিডেন্ট ও দেশটির প্রধানমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ বিন রশিদ আল মাকতুম এর আমন্ত্রণে পাঁচদিন ব্যাপী এ প্রতিরক্ষা প্রদর্শনীতে অংশ নেন তিনি। রোববার (১৭ ফেব্রুয়ারি) মিউনিখ নিরাপত্তা সম্মেলনে অংশগ্রহণ শেষে জার্মানি থেকে

বিস্তারিত

0 Comments

Add new comment