আজ : ১২:৩৩, জুলাই ৬ , ২০২০, ২২ আষাঢ়, ১৪২৭
শিরোনাম :

শাবি ছাত্রলীগকে ধুয়ে দিলেন ভিসি অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ


আপডেট:০৩:২৭, মার্চ ২৬ , ২০১৯
photo

সিলেট প্রতিনিধি: ‘শিক্ষার্থীদের সংগঠন’ বললেও শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা কখনোই শিক্ষার্থীদের দাবিদাওয়া নিয়ে নিজ থেকে কিছু বলতে আসেনি বলে মন্তব্য করেছেন শাবি ভিসি অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ।

মঙ্গলবার স্বাধীনতা দিবসের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি হতাশা প্রকাশ করে নানা বিষয়ে ক্ষোভ ঝাড়েন ছাত্রলীগের ওপর। ছাত্রলীগের এই ইউনিটটি নিয়ে তিনি ‘সর্বদা ভয়ে থাকেন’ বলেও মন্তব্য করেছেন। নিজের বক্তব্যে ছাত্রলীগকে রীতিমতো ধুয়ে দেন ভিসি ফরিদ।ভিসির বক্তব্যকালে শাখা ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মো. রুহুল আমিন ও সাধারণ সম্পাদক ইমরান খান সামনে বসা ছিলেন।

নেতাদের উদ্দেশ্য করে ভিসি ফরিদ উদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘তোমরা ছাত্রদের সমস্যা নিয়ে কখনোই আমাদের কাছে আসোনি। শুধু নিজের সমস্যা নিয়ে আসো। তোমরা কোনোদিন বলো নাই যে সেশনজটমুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় চাই, জঙ্গিমুক্ত, মাদকমুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় চাই। তোমরা কেউ কোনোদিন বলো নাই যে শিক্ষার্থীরা আবাসিক সংকটে ভুগছে কিংবা কোনো শিক্ষার্থীর এই সমস্যা, সেই সমস্যা। তোমাদের শিক্ষার্থীদের দিকে কারো কোনো নজর নেই। সবার নজর সামনের ১২০০ কোটি টাকার প্রজেক্টের দিকে।’

এ অনুষ্ঠানে ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক ছাড়া এই ইউনিটের বিদ্যমান অন্যান্য গ্রুপগুলো অংশ নেয়নি।গ্রুপিং রাজনীতির বিষয়ে ইঙ্গিত করে ভিসি ফরিদ উদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘দেশের বিভিন্ন আয়োজনে আমাকে ডাকা হয়। সেখানে আমি এই বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন কর্মকান্ডের জন্য প্রশংসা পাই। কিন্তু সত্য বলতে, আমি সবসময় আতংকে থাকি। শাবি ছাত্রলীগে অসংখ্য গ্রুপিং। আমরা অনেক চেষ্টা করেও তা দূর করতে পারিনি।’

এমনকি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রায় অর্ধ লক্ষাধিক শিক্ষার্থী হলেও সেখানে ‘এ ধরনের নোংরামি অনেকটাই কম’ বলে মন্তব্য করেন তিনি।সম্প্রতি বিশ্ববিদ্যালয়ে ঘটে যাওয়া হামলার ঘটনাকে ‘সন্ত্রাসী কার্যক্রমের’ সাথে তুলনা করে ভিসি বলেন, ‘যারা রাজীব সরকারকে আঘাত করেছে তারা ছাত্র নামধারী জঙ্গি।’ ‘মারামারি করে এরা পার পেয়ে যাবে এসব ভাবলে ভুল হবে’ বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

এসময় ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, ‘তোমাদের উচিত তাদেরকে (হামলাকারীদের) বের করে দেয়া। এদের জন্য তোমাদের দরদ থাকা উচিত না ‘তিনি বলেন, ‘ছাত্রলীগের নাম ধারণ করে বিশ্ববিদ্যালয়ের সুনাম যারা নষ্ট করবে তাদেরকে আমরা কোনোভাবেই সুযোগ দিবো না।’

বর্তমান ছাত্রলীগ বঙ্গবন্ধুকে আদর্শ ধারণ না করে ‘ভাই আদর্শ’ ধারণ করছে উল্লেখ করে ফরিদ উদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘‘সবার গুরু বঙ্গবন্ধু। কিন্তু তোমরা তা ভুলে ‘একেক সময় একেক ভাই’কে গুরু মানছো, যা বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে অপমান। এই সব ‘ভাই/নেতারা’ ছাত্রলীগকে ব্যবহার করে বিশ্ববিদ্যালয়কে অস্থির করতে চায় সবসময়।’’বিশ্ববিদ্যালয়ের মিনি অডিটেরিয়ামে আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন শাবি শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. এসএম সাইফুল ইসলাম।

সভায় আরো বক্তব্য রাখেন- সেন্টার অব এক্সিলেন্সের পরিচালক অধ্যাপক ড. আখতারুল ইসলাম, সিন্ডিকেট সদস্য অধ্যাপক জহির বিন আলম, শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক আনোয়ার হোসেন প্রমুখ।এর আগে সকাল আটটায় শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পন করেন শাবি ভিসি অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগ, সংগঠন ও রাজনৈতিক সংগঠন।

এদিকে, ভিসি ফরিদ উদ্দিন আহমেদের বক্তব্যের পর এক প্রতিক্রিয়ায় শাবি ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ইমরান খান বলেন, ‘বিনয়ের সাথে বলছি, স্যার ব্যস্ত মানুষ, স্যারের বোধ হয় খেয়াল নাই, আমরা বিশ্ববিদ্যালয়কে সেশনজটমুক্ত, মাদকমুক্ত করাসহ আবাসন সংকট দূরীকরণ, মেডিকেল সেন্টারের আধুনিকায়ন এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের মানোন্নয়নের জন্য ২০ দফা দাবি তুলে ধরেছিলাম। তার অনেক দাবিই এখন বাস্তবায়ন হচ্ছে বা বাস্তাবায়নের পথে। আমরা চাই যত দ্রুত সম্ভব দাবিগুলোর বাস্তবায়ন।’

Posted in সিলেট


সাম্প্রতিক খবর

টাওয়ার হ্যামলেটসের মেয়র ও উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সাথে কেয়ারার্স এসোসিয়েশনের ভার্চুয়াল মিটিং অনুষ্ঠিত

photo লন্ডনবিডিনিউজ২৪ঃটাওয়ার হ্যামলেটস কেয়ারার্স এসোসিয়েশন গত ২রা জুলাই বৃহস্পতিবার কেয়ারারদের বিভিন্ন দাবি ও সমস্যা নিয়ে টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিলের নির্বাহী মেয়র জন বিগস ও সংস্লিষ্ট উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সাথে বিকেল ৬ টা থেকে ঘন্টা ব্যাপি এক ভার্চুয়াল মিটিং অনুষ্ঠিত হয় । টাওয়ার হ্যামলেটস কেয়ারার্স এসোসিয়েশনের আহ্বানে সাড়া দিয়ে মেয়র জন বিগস এই ভার্চুয়াল সভার

বিস্তারিত

0 Comments

Add new comment