আজ : ০৫:৩৩, জুন ৪ , ২০২০, ২০ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭
শিরোনাম :

বিকল্প নেতৃত্ব খোঁজার অনুরোধ রাহুলের, সোনিয়া-প্রিয়াংকার সম্মতি


আপডেট:১০:২৯, মে ২৮ , ২০১৯
photo

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: পার্লামেন্ট নির্বাচনে হারের দায় নিয়ে কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধীর পদত্যাগের প্রস্তাবে সায় দিয়েছেন তার মা সোনিয়া গান্ধী ও বোন প্রিয়াংকা গান্ধী।

নির্বাচনে বড় ধরনের বিপর্যয়ের পর গত শনিবার দলের ওয়ার্কিং কমিটির বৈঠকেই পদত্যাগ করার ইচ্ছা প্রকাশ করেছিলেন রাহুল। কিন্তু সেদিন কমিটি তার পদত্যাগপত্র গ্রহণ করেনি। রাহুলের পদত্যাগের সিদ্ধান্তে মত ছিল না তার মা সোনিয়া গান্ধী ও বোন প্রিয়াংকারও। তবে নিজের সিদ্ধান্তে অনড় থাকায় শেষ পর্যন্ত সোনিয়া-প্রিয়াংকা তাকে বোঝাতে ব্যর্থ হয়ে পদত্যাগের সিদ্ধান্তে সম্মতি জানিয়েছেন। খবর এনডিটিভির।

এদিকে কংগ্রেসের দুই নেতা আহমেদ প্যাটেল ও কে কে বেনুগোপালের সঙ্গে বৈঠকে নিজের বিকল্প খোঁজার জন্য নির্দেশ দিয়েছেন রাহুল গান্ধী। তবে বিকল্প খোঁজার বিষয়টি অস্বীকার করেছেন সোনিয়া গান্ধীর রাজনৈতিক সচিব আহমেদ প্যাটেল।

টুইটবার্তায় তিনি বলেন, কংগ্রেস সভাপতির সঙ্গে তার বৈঠক একেবারেই দলের পরিচালনা সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে ছিল। এ বৈঠককে ঘিরে যেসব জল্পনা ও বক্তব্য তুলে ধরার চেষ্টা হচ্ছে তা ভিত্তিহীন।

নির্বাচনের পরাজয়কে রাহুল ব্যক্তিগতভাবে নিচ্ছেন বলে দায়িত্ব ছাড়তে চাইছেন বলে এনডিটিভিকে জানিয়েছেন কংগ্রেসের প্রবীণ নেতা শশী থারুর। তবে এটি তার নিজের বা কংগ্রেসের জন্য ভালো হবে না বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

রাহুলের এমন অনড় অবস্থানের কারণে তার পরবর্তী সময়ে কে আসছেন কংগ্রেসের নেতৃত্বে, এমন প্রশ্ন উঠেছে।

তবে নিজের মা সোনিয়া গান্ধী ও বোন প্রিয়াংকা গান্ধীও যে সভাপতির দায়িত্বে আসবেন না তাও জানিয়ে দিয়েছেন রাহুল। রাহুল বলেছেন, গান্ধী- নেহরু পরিবার থেকেই যে সভাপতি করতে হবে, এমন কোনো কথা নেই। এমতাবস্থায় আগামীতে দল কীভাবে পরিচালিত হবে তা ঠিক করতে বৈঠকে বসবে কংগ্রেস।



সাম্প্রতিক খবর

প্রবাসী বাংলাদেশীদের নিয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্যের প্রতিবাদ ও নিন্দা : প্রধানমন্ত্রী বরাবরে স্মারকলিপি প্রদানের সিদ্ধান্ত

লন্ডনবিড়িনিউজ২৪ঃবিশেষ প্রতিনিধি: গত ৩১শে মে রবিবার ভারচুয়াল মিডিয়া ঝুমের মাধ্যমে লণ্ডনে অনুষ্ঠিত সুশীল সমাজের নেতৃবৃন্দের এক জরুরী প্রতিবাদ সভায় সম্প্রতি প্রবাসী বাংলাদেশী সম্পর্কে বাংলাদেশ সরকারের পররাষ্ট্র মন্ত্রীর অশালীন মন্তব্য করার তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জানানো হয় ।সভায় বাংলাদেশ সরকারের প্রধানমন্ত্রী বরাবরে একটি প্রতিবাদ লিপি প্রেরণের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। বিশিষ্ট

বিস্তারিত

0 Comments

Add new comment