আজ : ০৮:০৮, অগাস্ট ২৪ , ২০১৯, ৯ ভাদ্র, ১৪২৬
শিরোনাম :

ফের মোদি এলে ভবিষ্যৎ নিয়ে ভীত ভারতের মুসলিমরা


আপডেট:১২:৪০, মে ১৭ , ২০১৯
photo

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: সম্প্রতি ভারতে মুসলিমবিদ্বেষী তৎপরতা উদ্বেগজনক হারে বেড়েছে। কেউ কেউ আশঙ্কা করছেন, হিন্দু জাতীয়তাবাদী দল ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি) এর শাসনামলে বিশ্বের সবচেয়ে বড় গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রটি মারাত্মক অসহিষ্ণু হয়ে পড়ছে। খবর বিবিসির।

ভারতের নির্বাচনের প্রথম ধাপের ভোটগ্রহণের মাত্র কয়েকদিন আগে মুসলিমবিদ্বেষী ঘটনা ঘটে। আসামের উত্তর-পূর্ব এলাকার মুসলমান ব্যবসায়ী শওকত আলী কাজ শেষে বাড়ি ফিরছিলেন। হঠাৎ বেশ কয়েকজন উচ্ছৃঙ্খল মানুষ তার ওপর হামলা চালায়।

আক্রমণকারীরা তাকে চারদিক থেকে ঘিরে ধরে। তারপর ময়লা কাদার ওপর হাঁটু গেড়ে বসতে বাধ্য করে। আপনি কি বাংলাদেশী? বলে তার ভারতীয় নাগরিকত্ব নিয়ে প্রশ্ন তোলে হামলাকারীদের একজন।

আপনি এখানে গরুর মাংস বিক্রি করেন কেন? শতকতের দিকে আঙুল উঁচিয়ে এ প্রশ্ন করে আরেকজন। শওকত আলীর এ লাঞ্ছনার ঘটনা দেখতে সেখানে উৎসাহী অনেক লোকই ভিড় করেছিল। তবে শওকতের সাহায্যে কেউ এগিয়ে আসেনি। বরং তারা মোবাইলে পুরো ঘটনাটির দৃশ্য ধারণ করছিল।

ঘটনার এক মাস পর এখনও শওকত ঠিকমত হাঁটতে পারেন না। বিবিসির প্রতিবেদক যখন তার সঙ্গে দেখা করতে যায় তখন ৪৮ বছর বয়সী শওকত নিজের বাড়িতে বিছানায় পা ভাঁজ করে বসেছিলেন। সেদিনের ঘটনার কথা বলতে গিয়ে তার চোখ ছলছল করে ওঠে।

তারা আমাকে লাঠি দিয়ে মেরেছে, আমার মুখে লাথি মেরেছে, মাথা ও পাঁজরের ক্ষতচিহ্নগুলো দেখিয়ে বলেন শওকত। তার পরিবার কয়েক দশক ধরে তাদের ছোট খাবারের দোকানটিতে ঝোলওয়ালা গরুর মাংস বিক্রি করে আসছেন, তবে আগে কখনও এ ধরনের ঘটনা ঘটেনি।

হিন্দুরা যেহেতু গরুকে পবিত্র মনে করে এজন্য ভারতের অনেক রাজ্যে গরুর মাংস বিক্রি করায় নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। তবে আসামে গরুর মাংস বিক্রি করা আইনত বৈধ। শওকত আলী শুধু শারীরিকভাবে আঘাতপ্রাপ্ত হননি, তার সামাজিক মর্যাদাও হারিয়েছেন। দুর্বৃত্তরা এই ধর্মপ্রাণ মুসলমান লোকটিকে শূকরের মাংস খেতে বাধ্য করেছে।

শওকতের শূকরের মাংস খাওয়ানোর ভিডিও ভাইরাল হয়েছিল। সেদিন তাকে তারা জোর করে শূকরের মাংস প্রথমে চাবাতে ও পরে গিলে খেতে বাধ্য করে। বেঁচে থাকার আর কোনও মানে হয় না আমার, বলে কান্নায় ভেঙে পড়েন শওকত। তিনি বলেন, এটি আমার সমস্ত বিশ্বাসের ওপর আঘাত।

জাতীয় নির্বাচনের আগের এমন ঘটনায় অনেকেই প্রশ্ন তুলেছেন, ভারতের ১৭ কোটি ২০ লাখ সংখ্যালঘু মুসলমান সম্প্রদায়ের অধিকার কতটা সমুন্নত রয়েছে? কেননা সেখানে গরুর মাংস বিক্রি করার কারণে বা বিক্রির সন্দেহে হামলার ঘটনা বেড়েই চলেছে। শওকত আলীর ঘটনা এর সাম্প্রতিক উদাহরণ।

উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে প্রকাশিত ‘হিউম্যান রাইটস ওয়াচ’ এর এক প্রতিবেদনে দেখা যায়, ২০১৫ এর মে থেকে ২০১৮ এর ডিসেম্বর পর্যন্ত সময়ে ভারতের ১২টি রাজ্যে ৪৪ জনকে হত্যা করা হয়েছে। এর মধ্যে ৩৬ জনই মুসলমান।



সাম্প্রতিক খবর

সিলেটের প্রবীণ কমিউনিটি ব্যক্তিত্ব ও সমাজসেবি গোলাম রব্বানি চৌধুরীর ইন্তেকাল

photo লন্ডনবিডিনিউজঃ সিলেটের খুরুমখলা নিবাসি প্রবীণ কমিউনিটি ব্যক্তিত্ব ও বিশিষ্ট সমাজসেবি গোলাম রব্বানি গত ১৭ আগস্ট ইন্তেকাল করেন। গোলাম রব্বানী চৌধুরী (আমুদ মিয়া), তার এলাকায় একজন সুপরিচিত ব্যাক্তি ছিলেন। তিনি সামাজিক, রাজনৈতিক বিভিন্ন সংগঠনের সাথে সস্পৃক্ত ছিলেন। তিনি মানুষের সুখে,দুখে আজীবন পাশে থাকতেন এবং মানুষকে বিভিন্ন ভাবে সাহায্যে, সহযোগিতা করতেন। তার মৃত্যুর সংবাদ

বিস্তারিত

0 Comments

Add new comment