আজ : ১২:৫৯, মে ২৪ , ২০১৮, ৯ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৫
শিরোনাম :

বাংলাদেশের ৩৫০ টাকার লুঙ্গি যখন জারা’র ৮ হাজার টাকার স্কার্ট


আপডেট:০৩:৪৩, জানুয়ারি ৩০ , ২০১৮
photo

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: স্পেনভিত্তিক আন্তর্জাতিক ফ্যাশন ব্র্যান্ড জারা সম্প্রতি তাদের নতুন একটি স্কার্ট বাজারে এনেছে। স্কার্টটির মূল্য ধরা হয়েছে প্রায় আট হাজার টাকা (৭০ ব্রিটিশ পাউন্ড)। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যমে মেট্রোর এক প্রতিবেদনে দাবি করা হচ্ছে, স্কার্ট নাম দিলেও আদতে এই পোশাকটি বাংলাদেশসহ দক্ষিণ এশিয়ার পুরুষদের লুঙ্গির মতোই দেখতে। যার মূল্য মাত্র ৩৫০ টাকা (৩ পাউন্ড)। অনেকেই বলছেন, ডিজাইনে একটু পরিবর্তন এনে এই লুঙ্গিকেই চড়াদামে বাজারজাত করছে জারা।

মেট্রো জানিয়েছে, জারা মাঝে মধ্যেই বিতর্কের মুখে পড়ে পোশাকের দাম ও ডিজাইনের কারণে। তবে এবার তারা অনেক বেশি ভুল করে ফেলেছে। যে লুঙ্গি বাংলাদেশ, পাকিস্তান, ভারত, সোমালিল্যান্ড ও নেপালে মাত্র ৩৫০ টাকায় পাওয়া যায়, তা এই ফ্যাশন সংস্থা বিক্রি করছে ৮ হাজার টাকায়।

সংবাদমাধ্যমটি লিখেছে, স্কার্ট হিসেবে লুঙ্গি বাজারজাত করতে জারা পোশাকটিতে সামান্য কিছু পরিবর্তন এনেছে। তারা এর পেছন দিকে জিপ লাগিয়েছে, যা সামনে থেকে দেখা যায় না। লুঙ্গির সঙ্গে জারা’র স্কার্টের আরেকটি পার্থক্য হলো, এটা পাওয়া যায় বাদামি রঙের। কিন্তু লুঙ্গি পাওয়া বিভিন্ন রঙে পাওয়া যায়।

মেট্রো’র খবরে সতর্ক করে বলা হয়েছে, কেউ যদি এই স্কার্ট কেনার জন্য জারা’র ওয়েবসাইটে যেতে চান, তাহলে এরচেয়ে অনেক কম মূল্যে অন্তত ১৭টি দোকানে এই লুঙ্গি পাওয়া যাবে। আর এসব দোকানে পাওয়া যাবে মাত্র ৩৫০ টাকায়। লুঙ্গিওয়ালা নামের একটি দোকানের তথ্য তুলে বলা হয়েছে, সেখানে তা মাত্র ৩ পাউন্ডে পাওয়া যাবে।

যেসব দেশে গরমের সারাদিন ট্রাউজার পরে থাকা কঠিন সেসব দেশে পুরুষদের একটি জনপ্রিয় পোশাক হচ্ছে লুঙ্গি। দক্ষিণ এশিয়ার ব্যাপক জনপ্রিয় হলেও সম্প্রতি বিশ্বের উষ্ণতম স্থানগুলোয় এর জনপ্রিয়তা বাড়ছে। বিশ্বের গুরুত্বপূর্ণ ফ্যাশন শোগুলো ক্যাটওয়াকে লুঙ্গি দেখা যায়। সংবাদমাধ্যমটির খবরে ব্যঙ্গ করে বলা হয়েছে, কে জানে হয়তো ভবিষ্যতে জারা শেরওয়ানি লুঙ্গি স্যুট নিয়ে আসতে পারে আগামীতে!



সাম্প্রতিক খবর

১০ বছর ধরে অবৈধ বসবাকারীদের সাধারণ ক্ষমার জন্য অনলাইন স্বাক্ষর অভিযান

বিশেষ প্রতিনিধি: ব্রিটেনে অবৈধভাবে বসবাসকারি ইমিগ্রান্ডদের সাধারণ ক্ষমা ঘোষণার দাবীটি ক্রমাগত জোরদার হয়ে ওঠেছে। ইতোমধ্যে নব নিযুক্ত হোম সেক্রেটারি ইমিগ্রান্ডদের স্বার্থ বিরোধী দুটি ধারা বাতিল ঘোষণা করেছেন। ব্রিটিশ ফরেন সেক্রেটারি ও লন্ডনের সাবেক মেয়র বরিস জনসন বরাবরই ইল্লিগ্যাল ইমিগ্রান্টদের সাধারণ ক্ষমা ঘোষনার পক্ষে মতামত ব্যক্ত করে আসছেন। সম্প্রতি স্টিভ পার্কার

বিস্তারিত

0 Comments

Add new comment