আজ : ০৭:০৯, মে ২৫ , ২০১৮, ১১ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৫
শিরোনাম :

খালেদা জিয়ার জামিন স্থগিতের আবেদনে শুনানি হবে আপিল বিভাগে


আপডেট:০৯:৪৪, মার্চ ১৩ , ২০১৮
photo

ঢাকা প্রতিনিধি:জিয়া এতিমখানা ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার সাজায় কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে হাই কোর্টের দেওয়া জামিন স্থগিতের যে আবেদন করা হয়েছে, বুধবার তার শুনানি হবে আপিল বিভাগে।

রাষ্ট্রপক্ষ ও দুদকের আলাদা দুটি আবেদন শুনে চেম্বার জজ বিচারপতি হাসান ফয়েজসিদ্দিকী কোনো আদেশ না দিয়ে বিষয়টি শুনানির জন্য আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে পাঠিয়ে দেন। আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম এবং দুদকের পক্ষে খুরশীদ আলম খান শুনানি করেন। অন্যদিকে খালেদা জিয়ার পক্ষে ছিলেন এজে মোহাম্মদ আলী।

গত ৮ ফেব্রুয়ারি ঢাকার বিশেষ জজ আদালতে এতিমখানা দুর্নীতি মামলার রায়ের পর থেকে গত ৩২ দিন ধরে নাজিমউদ্দিন রোডের পুরনো ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে আছেন সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া।

নিম্ন আদালত থেকে ওই মামলার নথি হাই কোর্টে আসার পর তা দেখে বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি সহিদুল করিমের হাই কোর্ট বেঞ্চ সোমবার তাকে চার মাসের জামিন দেয়।সেই সঙ্গে তার আপিল শুনানির জন্য ওই সময়ের মধ্যে সুপ্রিম কোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখাকে পেপারবুক তৈরি করতে নির্দেশ দেওয়া হয়।

খালেদা জিয়ার জামিনের বিরোধিতা করে রাষ্ট্রপক্ষ দ্রুততম সময়ের মধ্যে আপিল শুনানি শুরুর আদেশ চাইলেও হাই কোর্ট চারটি যুক্তিতে জামিন মঞ্জুর করে।

এগুলো হল- ১. নিম্ন আদালত পাঁচ বছরের সাজা দিয়েছে, এই সাজায় হাই কোর্টে জামিনের রেওয়াজ আছে। সে বিবেচনায় তিনি জামিন পেতে পারেন। ২. বিচারিক আদালতের নথি এসেছে, কিন্তু আপিল শুনানির জন্য এখনও প্রস্তুত হয়নি। ফলে আসামি জামিনের সুবিধা পেতে পারেন। ৩. বিচারিক আদালতে মামলা চলাকালে খালেদা জিয়া জামিনে ছিলেন; এর অপব্যবহার করেননি। আদালতে নিয়মিত উপস্থিত ছিলেন। ৪. বয়স এবং বয়সজনিত শারীরিক অসুস্থতা বিবেচনায় নিয়ে তাকে জামিন দেওয়া যায়।

অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম ও দুদকের আইনজীবী খুরশীদ আলম সোমবারই বলেছিলেন, তারা হাই কোর্টের জামিন আদেশের বিরুদ্ধ চেম্বার আদালতে যাবেন। এর ধারাবাহিকতায় মঙ্গলবার তারা আলাদাভাবে আবেদন করেন। কিন্তু চেম্বার আদালতের সাড়া না পাওয়ায় এখন তাদের আপিল বিভাগের সিদ্ধান্তের জন্য অপেক্ষা করতে হবে।



সাম্প্রতিক খবর

বাংলাদেশের পাওনা নিয়ে আলোচনা হয়েছে কিনা জনগণ জানতে চায়: মির্জা ফখরুল

photo ঢাকা সংবাদদাতা: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার কলকাতা সফরে বাংলাদেশের পাওনা ও দ্বিপাক্ষিক সমস্যাগুলো নিয়ে আলোচনা করেছেন কিনা জনগণ তা জানতে চায় বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। মাদকের বিরুদ্ধে চলমান অভিযান বিরোধী দলকে দমনের উদ্দেশ্যে চালানো হচ্ছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি। আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন সরকরারের ৯ বছরেও তিস্তা নদীর পানি বণ্টন চুক্তি না

বিস্তারিত

0 Comments

Add new comment