আজ : ০৩:২৩, সেপ্টেম্বর ২২ , ২০১৮, ৭ আশ্বিন, ১৪২৫
শিরোনাম :

ভিসির বাসভবনে হামলা, মামলা প্রত্যাহারে দাবিকারীরা জড়িত: হাছান


আপডেট:১২:৩৬, এপ্রিল ১৭ , ২০১৮
photo

ঢাকা প্রতিনিধি: কোটা সংস্কার আন্দোলন চলাকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ভবনে হামলার ঘটনায় মামলা প্রত্যাহারের দাবি নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন হাছান মাহমুদ।আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক বলেছেন, যারা এই মামলা প্রত্যাহারের দাবি করছে, তারাই হামলায় জড়িত থাকতে পারে।

মঙ্গলবার দুপুরে শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় চিত্রশালা মিলনায়তনে মুক্তিযুদ্ধ একাডেমি ট্রাস্ট এবং শিল্পকলা একাডেমি আয়োজিত মুজিবনগর দিবসের এক আলোচনায় কথা বলছিলেন হাছান।

গত ৮ ফেব্রুয়ারি কোটা সংস্কারের দাবিতে শাহবাগ মোড়ে অবস্থান নেয়া শিক্ষার্থীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ হয়। আর এই সংঘর্ষে এক ছাত্রের মৃত্যুর গুজব ছড়িয়ে রাতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ভবনে হামলা হয়।

হামলাকারীরা ভবনের বাইরে থাকা গাড়ি, নিচতলা ও দোতলার আসবাবপত্র পুড়িয়ে দেয়, লুট করা হয় স্বর্ণালঙ্কারসহ মূল্যবান সামগ্রী, প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন, ঐহিহাসিক নথিপত্র।উপাচার্য আখতারুজ্জামান জানান, তাকেও হত্যার চেষ্টা হয়েছিল এবং লাশের রাজনীতির চেষ্টা হয়েছে।

এই হামলার ঘটনায় মামলা হয়েছে চারটি। তদন্ত চলছে, কিছু আসামি শনাক্তের কথাও জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এবং ঢাকার পুলিশ কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া।

১৬ এপ্রিল কোটা নিয়ে আন্দোলনকারী সংগঠন বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের নেতারা সংবাদ সম্মেলন করে দুই দিনের মধ্যে এই মামলাসহ শাহবাগে সংঘর্ষের চারটি মামলাও তুলে নেয়ার দাবি জানায়। নইলে আবার রাস্তায় নামার হুমকি এসেছে।

হাছান মাহমুদ বলেন, ‘তরুণ সমাজের প্রতি সম্মান রেখে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কোটা পদ্ধতি বাতিল করে দিয়েছেন। কিন্তু এখন তারা ভিসির বাসভবনে হামলার ঘটনার মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছে। এঘটনায় জনগণ মনে করছে তারা এ হামলার সাথে যুক্ত থাকতে পারে।’

আওয়ামী লীগের মুখপাত্র বলেন, ‘যারা উপাচার্যের বাসভবনে হামলা করেছে এবং যারা এর পেছন থেকে কল-কাঠি নেড়েছে তাদেরকে আইনের আওতায় আনা হোক। তাদের বিচার নিশ্চত করতে হবে।এই আন্দোলনের পেছনে খেলা ছিল, সেই খেলা বেস্তে গেছে বিধায় নানান ধরণের কথা বার্তা ছড়ানো হচ্ছে।’

হাছান মাহমুদ বলেন, ‘যুদ্ধাপরাধীর একটি চক্র এখনো বিভিন্নভাবে দেশকে অস্থিতিশীল করার চেষ্টা করছে। আর এসবের প্রধান পৃষ্ঠপোষক হচ্ছে বিএনপির নেত্রী খালেদা জিয়া।’

মুক্তিযুদ্ধ একাডেমি ট্রাস্টের চেয়ারম্যান আবুল আজাদের সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিষয়ক উপদেষ্টা তৌফিক-ই-এলাহী চৌধুরী, সংসদ সদস্য ফজিলাতুন্নেছা বাপ্পী, সাবেক প্রধান তথ্য কমিশনার কবি আজিজুর রহমান, ঢাকায় রুশ বিজ্ঞান ও সংস্কৃতি কেন্দ্রের পরিচালক আলেকজান্ডার পি ডেমিন প্রমুখ।



সাম্প্রতিক খবর

দেশের মানুষ চায় সুশাসন নিশ্চিত হোক

photo ঢাকা সংবাদদাতা: গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন বলেছেন, দেশের মানুষ সুশাসন চায়। শনিবার (২২ সেপ্টেম্বর) নাগরিক সমাবেশে সূচনা বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। ঢাকা মহানগর নাট্যমঞ্চে ‘কার্যকর গণতন্ত্র, আইনের শাসন ও জনগণের ভোটের অধিকার নিশ্চিত করার লক্ষ্যে জাতীয় ঐক্য গড়ে তুলুন’ শীর্ষক এ সমাবেশের আয়োজন করেছে জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়া। ড. কামাল হোসেন বলেন, ‘দেশের জনগণের চলাফেরার স্বাধীনতা

বিস্তারিত

0 Comments

Add new comment