আজ : ০৩:৩৫, অক্টোবর ১৫ , ২০১৮, ৩০ আশ্বিন, ১৪২৫
শিরোনাম :

খালেদা জিয়ার মুক্তির দু’টি পথ জানালেন হানিফ


আপডেট:১২:৪৫, সেপ্টেম্বর ২০ , ২০১৮
photo

ঢাকা সংবাদদাতা: জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তির দু’টি পথের কথা জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ।

বৃহস্পতিবার (২০ সেপ্টেম্বর) দুপুরে গুলশান ইয়ুথ ক্লাবে ঢাকা মহানগর উওর আওয়ামী লীগের এক বর্ধিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা জানান।

হানিফ বলেন, ‘খালেদা জিয়ার মুক্তির দুইটি পথ আছে। একটি হলো আইনের প্রক্রিয়ায় মুক্তি, আরেকটি হলো নিজের অপরাধ স্বীকার করে মহামান্য রাষ্ট্রপতির কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করা। যদি মহামান্য রাষ্ট্রপতি ক্ষমা করে, তাহলে তিনি মুক্তি পাবেন। এই দুইটি পথ ছাড়া খালেদা জিয়ার মুক্তির কোনো পথ নেই।’

খালেদা জিয়া এতিমেরে টাকা আত্মসাৎ করেছে, তাই আইনের মাধ্যমে মুক্ত করতে পেরে বিএনপি সকাল-বিকাল রাস্তায় এসে সরকারের কাছে দাবি জানিয়ে যাচ্ছে উল্লেখ করে হানিফ বলেন, ‘এই তথাকথিত আন্দোলন করে লাভ হবে না। বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্তি দেওয়ার ক্ষমতা সরকারের নাই। পারলে তাকে আইনের লড়াইয়ের মাধ্যমে মুক্ত করেন।’

আওয়ামী লীগের এ নেতা বলেন, ‘মানুষ এখন নির্বাচনমুখী। নির্বাচনের যখন আর তিন মাস বাকি আছে তখন আমাদের দেশের একটি রাজনীতিক দল যারা ক্ষমতা থেকে আস্তাকুঁড়ে নিক্ষিপ্ত হয়েছিলো, সমর্থন নেই বলে ২০১৪ সালে নির্বাচনে অংশ না নিয়ে জনগণের উপর আক্রমন করেছিল, ঠিক এখন আবার তারা আবার সক্রিয়। সেই দল বিএনপি, এখন তারা বিদেশিদের কাছে ধর্ণা দিয়ে বেড়াচ্ছেন। তাদের অপকর্মের কারণেই জনগণ আজ তাদের কাছ থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছেন। বিএনপির কোনো কথা বা কর্মের উপর জনগণের এখন কোনো আস্থা নেই।’

ঢাকা মহানগর উত্তরের সভাপতি এ কে এম রহমতুল্লাহ এর সভাপতিত্বে বর্ধিত সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন- উত্তরের সহ-সভাপতি শেখ বজলুর রহমান, নাজিমুদ্দিন, ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক এসএম মান্নান কচি, দপ্তর সম্পাদক এম সাইফুল্লাহ সাইফুলসহ প্রমুখ।



সাম্প্রতিক খবর

বাকস্বাধীনতা খর্ব করার অভিযোগে কমিশন সভা বর্জন মাহবুব তালুকদারের

photo ঢাকা সংবাদদাতা: বাকস্বাধীনতা খর্ব করার অভিযোগে নির্বাচন নির্বাচন কমিশনের সভা বর্জন করেছেন কমিশনার মাহবুব তালুকদার। আজ কমিশন সভা শুরুর পাঁচ মিনিট পর আনঅফিসিয়াল (ইউও) নোট দিয়ে বের হয়ে আসেন তিনি। বের হওয়ার পর তিনি সাংবাদিকদের সভা বর্জনের বিষয় নিশ্চিত করলেও বিস্তারিত কিছু বলেননি। সকাল ১১টা ১০ মিনিটে কমিশনের ৩৬ তম সভা শুরু হয়। সভায় বাকস্বাধীনতা খর্ব করার অভিযোগ তুলে কয়েকটি বিষয়ে

বিস্তারিত

0 Comments

Add new comment