আজ : ০৬:৪৩, মে ২২ , ২০১৯, ৮ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬
শিরোনাম :

গণতন্ত্রের গলা টিপে ধরা হয়েছে: নজরুল ইসলাম


আপডেট:১২:৪৬, সেপ্টেম্বর ২০ , ২০১৮
photo

ঢাকা সংবাদদাতা: গণতন্ত্রের গলা টিপে ধরা হয়েছে বলে মন্তব্য করে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান বলেন, আজ মৃতপ্রায় গণতন্ত্র যদি নিহত হয়, তাহলে আবার কখন গণতন্ত্র ফিরে পাওয়া যাবে তার ঠিক নেই। সরকার এখন এক অস্বাভাবিক মন মানসিকতা নিয়ে আছে। কারণ, তাদের মধ্যে পরাজয়ের ভয় ঢুকেছে। শুধু তাই নয় পরাজয়ের পর কি হবে তারও ভয় আছে সরকারের।

বৃহস্পতিবার (২০ সেপ্টেম্বর) দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে নাগরিক অধিকার আন্দোলন ফোরাম আয়োজিত অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচন আদায়ে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের ভূমিকা ও আমাদের করণীয় শীর্ষক এক আলোচনা সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন। আওয়ামীলীগ নেতাদের বিভিন্ন বক্তব্য তুলে ধরে তিনি বলেন, খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম এক বক্তব্যে বলেছেন নির্বাচনে হেরে গেলে আওয়ামী লীগ নাকি রোহিঙ্গা হয়ে যাবে। তোফায়েল বলেন, এক লাখ মানুষ মারা যাবে।

নজরুল ইসলাম বলেন, আওয়ামী নেতাদের এসব বক্তব্য ভুল। গণতান্ত্রিক নির্বাচনে কেও হারবে, কেও জিতবে এটাই নিয়ম। রাজনীতিতে কেউ কারো শত্রু নয়। এখানে সবাই রাজনৈতিক প্রতিদ্বন্দ্বী। রাজনীতি কারো ক্ষতির জন্য নয় বলেও মন্তব্য করেন নজরুল ইসলাম খান।

ডিজিটাল আইন নিয়ে তিনি বলেন, পাস হওয়া ডিজিটাল আইন স্বাধীন সাংবাদিকতার জন্য হুমকি। যেখানে স্বাধীন মিডিয়া, বিচার বিভাগ থাকতে পারবে না। সেখানে গণতন্ত্র থাকবে কি করে? গণতন্ত্র কোনো বস্তু না। এটি একটি ব্যবস্থা বলেও মন্তব্য করেন নজরুল ইসলাম খান।

নজরুল ইসলাম বলেন, মোটামুটি কোনো রকমেরও যদি একটি নিরপেক্ষ নির্বাচন হয়। তাহলে আওয়ামী লীগ জিততে পারবে না। তাদের লজ্জাজনক পরাজয় হবে। তাই তারা ভয়ে আছে। আমি বলি, রাজনীতিতে ভয়ের কি আছে? সবসময় জিতবেন নাকি? কখনো হারবেন, কখনো জিতবেন। কখনো বিরোধী দলে থাকবেন৷

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বরাত দিয়ে তিনি বলেন, আমরা প্রতিহিংসার রাজনীতি করি না। আমরা কারো বিরুদ্ধে কোনো পদক্ষেপ আমরা নেব না। কাজেই ভয় পাবেন না। নিরপেক্ষ নির্বাচন দেন।

খালেদা জিয়াকে সাজা দিয়েছেন ৫ বছরের। কিন্তু তাকে বিনা চিকিৎচায় মরে যেতে হবে এমন কোনো অপরাধ তো তিনি করেননি বলেও মন্তব্য নজরুলের।



সাম্প্রতিক খবর

টাওয়ার হ্যামলেটসের ৩৬ জন বাসিন্দা পেলেন বৃটিশ নাগরিকত্ব

photo লন্ডনবিডিনিউজ২৪ : টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিলের রেজিস্টার অফিসের উদ্যোগে আয়োজিত সিটিজেনশীপ অনুষ্ঠানে পরিবার পরিজন ও বন্ধু বান্ধবদের সামনে রাণীর প্রতি আনুগত্য ঘোষনা করে ব্রিটিশ নাগরিকত্ব গ্রহণ করেন ৩৬ জন বাসিন্দা। নাগরিকত্ব গ্রহণের এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন মেয়র জন বিগস এবং কাউন্সিলের চীফ এক্সিকিউটিভ উইল টাকলি। তাঁরা নতুন বৃটিশ নাগরিকদের বারায় স্বাগত জানান। মেয়র জন বিগস

বিস্তারিত

0 Comments

Add new comment