আজ : ০১:৩৬, সেপ্টেম্বর ১৬ , ২০১৯, ১ আশ্বিন, ১৪২৬
শিরোনাম :

২০১৮ সালে দক্ষিণ এশিয়ায় সবচেয়ে ক্রমবর্ধমান অর্থনীতি বাংলাদেশের


আপডেট:০৫:৪৭, জানুয়ারি ৯ , ২০১৯
photo

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ২০১৮ সালে দক্ষিণ এশিয়ায় সবচেয়ে ক্রমবর্ধমান অর্থনীতির দেশ হিসেবে আবির্ভূত হয়েছে বাংলাদেশ। তবে ধারণা করা হচ্ছে, আগামী কয়েক বছরের মধ্যে শীর্ষস্থানে ফিরে আসবে ভারত। এমনটাই উঠে এসেছে বিশ্ব ব্যাংকের সাম্প্রতিক এক প্রতিবেদনে।

বিশ্ব ব্যাংকের এই প্রতিবেদনের শিরোনাম দেওয়া হয়েছে, ২০১৯ গ্লোবাল ইকোনমিক প্রসপেক্ট রিপোর্ট। মঙ্গলবার প্রকাশিত এই প্রতিবেদনে বলা হয়, ২০১৭-১৮ অর্থবছরে (১ জুলাই থেকে ৩০ জুন) বাংলাদেশের আনুমানিক প্রবৃদ্ধি ছিল ৭ দশমিক ৯ শতাংশ। একই সময়ে ভারতের আনুমানিক প্রবৃদ্ধি ছিল ৭ দশমিক ৩ শতাশ। পাকিস্তানের প্রবৃদ্ধি ছিল ৫ দশমিক ৮ শতাংশ।

বিশ্ব ব্যাংক বলছে, ২০১৮ সালে বাংলাদেশে প্রবৃদ্ধির মূল চালিকাশক্তি ছিল শক্তিশালী ব্যক্তিগত রেমিট্যান্স প্রবাহ। তবে ক্রমবর্ধমান হারে খাদ্য ও যন্ত্রপাতি আমদানি এবং দুর্বল রফতানির ফলে নিট রফতানি ছিল নেতিবাচক। প্রতিবেদনে আশাবাদ ব্যক্ত করে বলা হয়, বাংলাদেশে শক্তিশালী অর্থনৈতিক কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে। তবে ২০১৮-১৯ অর্থবছরে জিডিপি প্রবৃদ্ধির গতি কিছুটা মন্থর হয়ে ৭ শতাংশে দাঁড়াতে পারে বলে আভাস দিয়েছে সংস্থাটি।

বিশ্ব ব্যাংকের ধারণা, আগামী তিন বছরে বাংলাদেশের প্রবৃদ্ধির হার হবে ৬ দশমিক ৮ শতাংশ। ব্যক্তিগত খাত ও অবকাঠামো প্রকল্পের পেছনে ব্যাপক বিনিয়োগ হবে। অভ্যন্তরীণ চাহিদার ফলে রফতানির চেয়ে আমদানি বেশি হওয়ায় জিডিপি বৃদ্ধিতে নেতিবাচক ফল আসার আশঙ্কা রয়েছে।প্রতিবেদনে ২০১৯ সালের মধ্যে দক্ষিণ এশিয়ার প্রবৃদ্ধি ৭ দশমিক ১ শতাংশে উন্নীত হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করা হয়েছে।



সাম্প্রতিক খবর

পুর্ব লন্ডনে স্যার জনক্যাস স্কুলের প্রাক্তন ছাত্রদের পুনর্মিলনী

photo লন্ডনবিডিনিউজ২৪ঃ গত রবিবার ১৫ অক্টোবর: পুর্ব লন্ডনের ডকল্যান্ড এলাকার একটি হলরুমে অনুষ্ঠিত হয়ে গেল স্যার জনক্যাস স্কুলের প্রাক্তন ছাত্রদের এক মিলন মেলা। আশির দশকে যারা এ স্কুলে লেখা পড়া করেছিলেন তাদের নিয়ে ছিল এই আয়োজন। পুর্ব লন্ডন ও বিভিন্ন এলাকা এবং এসেক্সের, কেন্ট, ও ব্রিস্টলসহ বৃটেনে ছডিয়ে ছিটিয়ে থাকা প্রায় ৮০ জন ছাত্র এতে ঊপস্তিত হন। গত কয়েক বছর থেকে এই অনুষ্ঠানটি

বিস্তারিত

0 Comments

Add new comment