আজ : ০৫:৫২, মে ২২ , ২০১৯, ৮ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬
শিরোনাম :

রিজার্ভ চুরি: বাংলাদেশ ব্যাংকের বিরুদ্ধে আরসিবিসির মানহানি মামলা


আপডেট:১১:৫১, মার্চ ১২ , ২০১৯
photo

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: রিজার্ভ চুরির আলোচিত ঘটনায় ফিলিপাইনের ম্যানিলাভিত্তিক রিজাল কমার্শিয়াল ব্যাংকিং করপোরেশনের (আরসিবিসি) বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছিল বাংলাদেশ ব্যাংক। গত ৩১ জানুয়ারি যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কের সাউদার্ন ডিস্ট্রিক্ট কোর্টে মামলাটি দায়ের করা হয়েছিল। সেই মামলার জবাব দিতে, এবার উল্টো বাংলাদেশ ব্যাংকের বিরুদ্ধেই মানহানির হামলা করেছে আরসিবিসি। খবর রয়টার্সের।

রিজাল কমার্শিয়াল ব্যাংকিং করপোরেশনের এই মামলায় বাংলাদেশ ব্যাংককে অভিযুক্ত করা হয়েছে, অর্থ হ্যাকিং এর বিষয়ে ব্যাংকটি বিরুদ্ধে ভিত্তিহীন অভিযোগের। আরসিবিসি জানায়, বাংলাদেশ ব্যাংকের বিদ্বেষপূর্ণ এমন কাণ্ডে তাদের মানহানি ও কোম্পানির ক্ষতিসাধন হয়েছে। তাই তারা অন্তত ১.৯ মিলিয়ন ডলারের ক্ষতিপূরণ দাবি করে। তবে মামলা দায়েরের বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের পক্ষ থেকে এখনো কোন মন্তব্য করা হয়নি।

উল্লেখ্য, গত ২০১৬ সালের ৪ ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ থেকে ১০ কোটি ১০ লাখ ডলার চুরি করে নেয় হ্যাকাররা। যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংক থেকে সুইফট কোডের মাধ্যমে বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে এই অর্থ চুরি করা হয়। চুরি হওয়া অর্থের মধ্যে শ্রীলঙ্কায় ২ কোটি ডলার এবং বাকি ৮ কোটি ১০ লাখ ডলার প্রথমে ফিলিপাইনের রাজধানী ম্যানিলায় অবস্থিত রিজাল কমার্শিয়াল ব্যাংকিং কর্পোরেশনের (আরসিবিসি) একটি শাখায় পাঠানো হয়। পরে এই অর্থ আরসিবিসি থেকে চলে যায় ফিলিপাইনের জুয়ার আসরে।

এই ঘটনায় জড়িত থাকার কারণে কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে, আরসিবিসি-এর সাবেক ব্যবস্থাপক মায়া দেগুইতোকে। গত ১০ জানুয়ারি তাকে বিভিন্ন অভিযোগে সর্বোচ্চ সাত বছর কারাদণ্ড দেওয়া হয়। এছাড়া, জরিমানা করা হয়, ১০ কোটি ৯ লাখ ডলার। রায়ে আদালত জানান, হ্যাকিং এর অর্থ লেনদেনে মায়া দেগুইতোর সম্পৃক্ততরা প্রমাণ মিলেছে। তিনি অবৈধ ব্যাংক লেনদেনের সঙ্গে জড়িত ছিলেন।

বাংলাদেশ ব্যাংকের দায়ের করা মামলায়, আরসিবিসির কাছে চুরি হওয়া অর্থের পাশাপাশি মামলা পরিচালনা ও এ সংক্রান্ত আইনি খরচসহ ক্ষতিপূরণ চাওয়া হয়েছে। সেই মামলায় আরও আসামি করা হয়, সম্পৃক্ত মানি এক্সচেঞ্জ, ক্যাসিনোসহ যেসব স্থানে টাকা গেছে, সেসব প্রতিষ্ঠান ও সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের।



সাম্প্রতিক খবর

টাওয়ার হ্যামলেটসের ৩৬ জন বাসিন্দা পেলেন বৃটিশ নাগরিকত্ব

photo লন্ডনবিডিনিউজ২৪ : টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিলের রেজিস্টার অফিসের উদ্যোগে আয়োজিত সিটিজেনশীপ অনুষ্ঠানে পরিবার পরিজন ও বন্ধু বান্ধবদের সামনে রাণীর প্রতি আনুগত্য ঘোষনা করে ব্রিটিশ নাগরিকত্ব গ্রহণ করেন ৩৬ জন বাসিন্দা। নাগরিকত্ব গ্রহণের এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন মেয়র জন বিগস এবং কাউন্সিলের চীফ এক্সিকিউটিভ উইল টাকলি। তাঁরা নতুন বৃটিশ নাগরিকদের বারায় স্বাগত জানান। মেয়র জন বিগস

বিস্তারিত

0 Comments

Add new comment