আজ : ০৪:৩৩, মে ২৪ , ২০১৯, ১০ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬
শিরোনাম :

সরকারের হস্তক্ষেপের কারণে খালেদা জিয়া জামিন পাচ্ছেন না : আলাল


আপডেট:০৫:৫৪, এপ্রিল ১৯ , ২০১৯
photo

ঢাকা প্রতিনিধি: বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল বলেছেন, বাংলাদেশে খাতা-কলমে আইন আছে, প্রশাসনও আছে। কিন্তু আইনের শাসন বলতে যেটা বোঝায় সেটা কিন্তু আওয়ামী লীগের আমলে নেই। আইনের শাসন নেই বলেই দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া সরকারের হস্তক্ষেপের কারণেই মুক্তি পাচ্ছে না। আইন যদি থাকত আর আইনের বাস্তবায়ন থাকত তিনি অবশ্যই অনেক আগেই জামিন পেতেন। সরকারের পক্ষ থেকে বারবার জামিনে বাধা সৃষ্টি করা হতো না।

শুক্রবার বিকেলে ময়মনসিংহ দক্ষিণ জেলা বিএনপির জরুরি সভায় এসব কথা বলেন মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল। শহরের হরি কিশোর রায় রোডে দক্ষিণ জেলা বিএনপির কার্যালয়ে এই সভা হয়।

বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার প্যারোলে মুক্তির বিষয়ে আলাল বলেন, ‘আমরা খালেদা জিয়ার জামিনে মুক্তির ব্যাপারে, তাঁর জামিনের অধিকারের ব্যাপারে, জামিনে মুক্তি পাবেন এই সম্মানিত শব্দটির সঙ্গেই থাকতে চাই। তাঁর অসুস্থতা নিয়ে, তাঁর জীবনহানির আশঙ্কা নিয়ে আওয়ামী লীগ রাজনীতি করে, আমরা রাজনীতি করতে পারব না।

বিএনপির এই যুগ্ম মহাসচিব বলেন, সরকারের মধ্যেই দুটি গ্রুপ। একটি হচ্ছে প্যারোল প্রসব করেছে। মা যেমন সন্তান প্রসব করে, ওইভাবে একজন মন্ত্রী প্যারোল নামক একটি শব্দ প্রসব করেছেন। আর ওই প্রসবিত শিশুটিকে লালন-পালন করে বড় করার চেষ্টা করছেন আরেকপক্ষ। বিএনপির পক্ষ থেকে প্যারোল নামক শব্দের জন্মও দেওয়া হয় নাই, লালন পালনও করি না।

মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল বলেন, বর্তমানে দেশে কোনো সরকার নাই, রয়েছে শাসকগোষ্ঠী। ছয় বছরের শিশু থেকে ছয় সন্তানের জননীরা পর্যন্ত ধর্ষিত হচ্ছে এবং শতভাগ ঘটনার সঙ্গে আওয়ামী লীগের কোনো না কোনো সোনার ছেলে জড়িত। নুসরাতের ঘটনার সঙ্গেও তারা জড়িত।

ময়মনসিংহ দক্ষিণ জেলা বিএনপির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অধ্যাপক শফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে সভা সঞ্চালনা করেন সাধারণ সম্পাদক ওয়াহাব আকন্দ। উপস্থিত ছিলেন বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য সাবেক সাংসদ নূরজাহান ইয়াসমিন, ইঞ্জিনিয়ার শামসুদ্দিন, ডা. মাহবুবুর রহমান লিটনসহ দক্ষিণ জেলা বিএনপির সদস্যরা।



সাম্প্রতিক খবর

পদত্যাগের ঘোষণায় থেরেসা মে

photo আন্তর্জাতিক ডেস্ক: পদত্যাগের ঘোষণা দিয়েছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে। কনজারভেটিভ দলের এই নেতা আগামী ৭ জুন পদত্যাগ করছেন বলে জানিয়েছে ব্রিটিশ সংবাদ মাধ্যম বিবিসি। ব্রেক্সিট অর্থাৎ ব্রিটেনের ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন ত্যাগের ব্যাপারে তার নতুন পরিকল্পনা তার মন্ত্রীসভায় ও পার্লামেন্টে অনুমোদিত হবে না এটা স্পষ্ট হবার পরই তিনি পদত্যাগ করলেন। শুক্রবার লন্ডনে ১০ নম্বর ডাউনিং

বিস্তারিত

0 Comments

Add new comment