আজ : ১০:১৯, ফেব্রুয়ারি ২৯ , ২০২০, ১৭ ফাল্গুন, ১৪২৬
শিরোনাম :

৬১ মিনিটের বক্তব্যে ৫১ বার মিথ্যা বলেছেন ট্রাম্প!


আপডেট:১২:১৩, মার্চ ৩ , ২০১৭
photo

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: মার্কিন আইনসভা কংগ্রেসে মঙ্গলবার নিজের ৬১ মিনিটের বক্তব্যে ৫১টি আংশিক বা পুরোপুরি মিথ্যা মন্তব্য করেছেন প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প। পোলিটিফ্যাক্ট নামে একটি ওয়েবসাইট ও সেন্টার ফর আমেরিকান প্রোগ্রেসে’র হিসাবকে উদ্ধৃত করে এ খবর দিয়েছে দ্য ইন্ডিপেন্ডেন্ট। নিজের বক্তব্যে ট্রাম্প বলেন, বর্তমানে ৯ কোটি ৪০ লাখ আমেরিকানের কোনো কর্মসংস্থান নেই। মার্কিন শীর্ষ পত্রিকা নিউ ইয়র্ক টাইমস উল্লেখ করেছে, এ বক্তব্য বিভ্রান্তিকর। কারণ, তার হিসাবে আমেরিকানদের মধ্যে অনূর্ধ্ব ১৫ বছর বয়সীরাও রয়েছে, যাদের কাজ করা নিষিদ্ধ। বিদ্যালয় ও কলেজগামী শিক্ষার্থীরাও রয়েছে। আছে প্রতিবন্ধী মানুষ, বাসায় অবস্থানরত পিতা-মাতা এবং অবসরপ্রাপ্ত ও পেনশনভোগী মানুষও। এদের সবাই-ই কাজ করেন না। তাই এদেরকেও ‘বেকার’ হিসেবে উল্লেখ করে ট্রাম্প বিভ্রান্তিকর তথ্য দিয়েছেন। ফলে কর্মক্ষম বা কর্মসংস্থান খুঁজছেন কিন্তু পাচ্ছেন না, এমন মানুষের সংখ্যা আসলে অনেক কম।
নিজের বক্তব্যে ডনাল্ড ট্রাম্প বিভিন্ন কোম্পানির আমেরিকায় বিনিয়োগ করা নিয়ে নিজের কৃতিত্ব জাহির করেছেন। কিন্তু সত্য হচ্ছে, প্রায় সবগুলো কোম্পানির বিনিয়োগের ওই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছিল তার ক্ষমতাগ্রহণের আগে। তিনি দাবি করেন, এফ-৩৫ যুদ্ধবিমানের দাম বিপুলভাবে কমানো হয়েছে তার হস্তক্ষেপের কারণে। কিন্তু প্রকৃতপক্ষে ওই দাম কমানোর সিদ্ধান্ত নেয়া হয় তার ক্ষমতাগ্রহণের অনেক আগে। তিনি ন্যাশনাল অ্যাকাডেমি অব সাইয়েন্সের একটি রিপোর্টের উদ্ধৃতি দিয়ে বলেন, বর্তমান অভিবাসন সিস্টেমের কারণে আমেরিকান করদাতাদের প্রতি বছর কয়েকশ’ কোটি টাকা নষ্ট হচ্ছে। কিন্তু প্রকৃতপক্ষে ওই রিপোর্টের সারাংশে বলা হয়, অভিবাসীরা বরং কর প্রদান করে এবং জনসেবা খাতের সেবা গ্রহণ করার মাধ্যমে সরকারের অর্থায়নে অবদান রাখছে। ট্রাম্প বলেছেন, মধ্যবিত্ত শ্রেণির মানুষের জন্য তিনি কর কমাবেন। কিন্তু এ নিয়ে কোনো বিস্তারিতই তিনি জানাননি। স্বতন্ত্র বিশ্লেষকরা বরং বলছেন, ট্রাম্পের নির্বাচনকালীন করনীতিতে সবচেয়ে বেশি লাভবান হবে সম্পদশালীরা।
ট্রাম্প দাবি করছেন, মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার আমলে প্রণীত স্বাস্থ্যনীতি ওবামাকেয়ার ধসে পড়ছে। প্রকৃতপক্ষে, এ স্বাস্থ্যনীতি নিয়ে সমস্যা ও সমালোচনা আছে বটে, কিন্তু এটি ধসে পড়ছে, তার কোনো প্রমাণ নেই। এছাড়া নিজের বাজেটে প্রতিরক্ষা ব্যয় বৃদ্ধি, সন্ত্রাসবাদে আমেরিকার বাইরে থেকে আসা লোকজনের সম্পৃক্ততা নিয়েও বিভ্রান্তিকর তথ্য দিয়েছেন প্রেসিডেন্ট।



সাম্প্রতিক খবর

টাওয়ার হ্যামলেটসে নবম পরিচ্ছন্ন সপ্তাহ শুরু

photo লন্ডনবিডিনিউজ২৪ টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিলের নবম পরিচ্ছন্ন অভিযান সপ্তাহ ২২ ফেব্রুয়ারী শনিবার থেকে শুরু হয়েছে। ঐদিন সকাল সাড়ে ১০টায় মাইল এন্ড পার্কে পরিচ্চছন্ন অভিযানে মেয়র জন বিগস এর সাথে যোগ দেন স্থানিয় বাসিন্দা, কাউন্সিল স্টাফ, স্থানিয় ব্যবসায়ি ও স্কুল শিক্ষার্থীরা। `নিজের এলাকাকে ভালোবাসুন' এই বার্তা ছড়িয়ে দেয়ার লক্ষ্যে কাউন্সিল কিছু দিন পর পর এই পরিচ্ছন্ন

বিস্তারিত

0 Comments

Add new comment