আজ : ০৬:২৮, ফেব্রুয়ারি ২৮ , ২০২০, ১৬ ফাল্গুন, ১৪২৬
শিরোনাম :

কৈতর সিলেট-এর গ্রন্থ প্রকাশনা উৎসব


নিজেদের অস্তিত্বের স্বার্থে আমাদেরকে ইতিহাস সচেতন হতে হবে - সাবেক পিপি গিয়াস উদ্দিন আহমদ

আপডেট:১১:১৪, অক্টোবর ৯ , ২০১৭
photo

মো. আব্দুল বাছিত, সিলেট: আল্লাহপ্রেমিক যেসব মুমিনের কারণে এই ভারতীয় উপমহাদেশে আল্লাহর দ্বীনের দাওয়াত প্রচার হয়েছে তাদের মধ্যে অন্যতম হলেন হজরত শাহজালাল (র.)। তাঁরই সুযোগ্য শিষ্য হজরত শাহ কালু (র.)-এর দাওয়াতের কারণে শত শত মানুষ মুসলমান হয়েছেন। আমাদেরকে সত্যিকার মুসলমান হতে হলে আল্লাহপ্রেমিক মানুষের জীবনী পড়ে শিক্ষা অর্জন করতে হবে। নিজেদের অস্তিত্বের স্বার্থে আমাদেরকে ইতিহাস সচেতন হতে হবে।
কৈতর সিলেট আয়োজিত বিশিষ্ট সমাজসেবী, রাজনীতিবিদ মাহবুবুর রহমান চৌধুরী সম্পাদিত ‘আউলিয়াকুল শিরোমণি হজরত শাহ কালু (র.)-এর জীবনী ও বংশধর’ গ্রন্থের প্রকাশনা উৎসবে প্রধান অতিথির বক্তব্যে সিলেটের সাবেক পাবলিক প্রসিকিউটর গিয়াস উদ্দিন আহমদ এ কথা বলেন। কৈতর সিলেট-এর উদ্যোগে ও কেন্দ্রীয় মুসলিম সাহিত্য সংসদের সহ সভাপতি সাংবাদিক-সংগঠক সেলিম আউয়ালের সভাপতিত্বে গত রোববার সংসদের সাহিত্য আসর কক্ষে এই প্রকাশনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।
সিলেট এক্সপ্রেস ডটকমের স্টাফ রিপোর্টার তাসলিম খানম বীথির সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে মূখ্য আলোচক হিসেবে বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ-লেখক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) জুবায়ের সিদ্দিকী, বিশেষ অতিথির হিউম্যান রাইট পিস ফর বাংলাদেশ, সিলেট-এর প্রেসিডেন্ট এডভোকেট আব্দুল হাই কাইয়ুম, সিলেট প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক প্রবীণ সাংবাদিক মুহম্মদ বশিরুদ্দিন, কেন্দ্রীয় মুসলিম সাহিত্য সংসদের সাধারণ সম্পাদক দেওয়ান মাহমুদ রাজা চৌধুরী, সিলেট আইনজীবী ফেডারেশনের সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান এডভোকেট আব্দুর রহমান চৌধুরী বক্তব্য রাখেন। সভায় লেখক অনুভূতি প্রকাশ করেন গ্রন্থের সম্পাদক মাহবুবুর রহমান চৌধুরী এবং মূল প্রবন্ধ পাঠ করেন কবি-সাংবাদিক মো. আব্দুল বাছিত।
বাংলাদেশ ফটো জার্নাালিস্ট এসোসিয়েশন সিলেট বিভাগীয় কমিটির সভাপতি সাংবাদিক আব্দুল বাতিন ফয়সলের স্বাগত বক্তব্যের মাধ্যমে শুরু হওয়া অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় মুসলিম সাহিত্য সংসদের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আজিজুল হক মানিক, বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক জেনারেল ম্যানেজার মো. আব্দুর রউফ, লেখক সৈয়দ মোহাম্মদ তাহের, সাবেক এপিপি এডভোকেট শাহ আলম মহিউদ্দিন, ঔপন্যাসিক আলেয়া রহমান, বিশ^নাথ উপজেলার একাডেমিক পরিদর্শক মো. ফজলুল হক। অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন মাওলানা শামসীর হারুনুর রশীদ।
বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ-লেখক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) জুবায়ের সিদ্দিকী বলেন, ভারতীয় উপমহাদেশে যারা দ্বীনের দাওয়াত মানুষের কাছে পৌঁছিয়েছেন, তাদের জীবনী জানা আমাদের সকলের একান্ত কর্তব্য। তাদের কল্যাণেই আমরা মুসলমান হিসেবে নিজেদেরকে পরিচয় দিতে পারছি। আশা করি, মাহবুবুর রহমান চৌধুরী সমাজ ও দেশের জন্য তাঁর সৃজনশীলতাকে বেশি করে কাজে লাগাবেন।
হিউম্যান রাইট পিস ফর বাংলাদেশ, সিলেট-এর প্রেসিডেন্ট এডভোকেট আব্দুল হাই কাইয়ুম বলেন, অত্যন্ত উদার মনের অধিকারী মাহবুবুর রহমান চৌধুরী। সকল পেশার মানুষের সাথে অত্যন্ত হৃদ্যতার সম্পর্ক। সমাজ ও দেশের কল্যাণের জন্য তাঁর চিন্তা-চেতনা আমাদেরকে প্রেরণা দেয়। অনেক ব্যস্ততার পরেও যে তিনি একটা বই রচনা করেছেন, তা তাঁর লেখক স্বত্ত্বাকে স্বমহিমায় উজ্জ্বল করে।
সিলেট প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক প্রবীণ সাংবাদিক মুহম্মদ বশিরুদ্দিন বলেন, ভারতীয় উপমহাদেশে সূফী সাধকরা দ্বীনের প্রচার করেছেন। মানুষকে আল্লাহর পথে নিয়ে এসেছেন। তাঁদেরই অন্যতম একজন হজরত শাহ কালু (র.)-এর জীবনী রচনা করে লেখক মাহবুবুর রহমান চৌধুরী ইতিহাসের অংশ হয়ে গেছেন।
কেন্দ্রীয় মুসলিম সাহিত্য সংসদের সাধারণ সম্পাদক দেওয়ান মাহমুদ রাজা চৌধুরী বলেন, এ বিশে^ যত রেনেসাঁর উদ্ভব হয়েছে, তার সবকটিই অলি আউলিয়াদের মাধ্যমেই হয়েছে। তাদের জীবনী জানা আমাদের সকলের নৈতিক দায়িত্ব। মুসলিম জাগরণের কর্ণধার হিসেবে তাঁদেরকে জাতির কাছে তুলে ধরা মুসলমানের কর্তব্য। মাহবুবুর রহমান চৌধুরী এই বইটি রচনা করে সেই গুরুত্বপূর্ণ সম্পদ আমাদের হাতে তুলে দিয়েছেন।
অনুভূতি প্রকাশ করতে গিয়ে গ্রন্থের সম্পাদক মাহবুবুর রহমান চৌধুরী বলেন, যাদের কারণে নিজেকে মুসলিম হিসেবে পরিচয় দিতে পারছি, সেই মহামানবদের একজন হজরত শাহ কালু (র.)। নিজের দায়িত্ববোধ থেকেই এই বইটি রচনা করতে সচেষ্ট হয়েছি। অনেক ত্যাগ-তিতিক্ষার ফলে বইটি আলোর মুখ দেখায় কষ্টকে সার্থক মনে হচ্ছে। মুসলিম ঐতিহ্য জানার স্বার্থে বইটি সকলের পড়া উচিত।
সভাপতির বক্তব্যে কেন্দ্রীয় মুসলিম সাহিত্য সংসদের সহ সভাপতি সেলিম আউয়াল বলেন, হারানো ইতিহাসকে জানা এবং অনুধাবণের জন্য মাহবুবুর রহমান চৌধুরী হজরত শাহ কালু (র.)-এর জীবনী রচনা করতে সচেষ্ট হয়েছেন। এটা প্রশংসনীয়। আমাদেরকে ঐতিহ্য সচেতন হতে হবে।



সাম্প্রতিক খবর

টাওয়ার হ্যামলেটসে নবম পরিচ্ছন্ন সপ্তাহ শুরু

photo লন্ডনবিডিনিউজ২৪ টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিলের নবম পরিচ্ছন্ন অভিযান সপ্তাহ ২২ ফেব্রুয়ারী শনিবার থেকে শুরু হয়েছে। ঐদিন সকাল সাড়ে ১০টায় মাইল এন্ড পার্কে পরিচ্চছন্ন অভিযানে মেয়র জন বিগস এর সাথে যোগ দেন স্থানিয় বাসিন্দা, কাউন্সিল স্টাফ, স্থানিয় ব্যবসায়ি ও স্কুল শিক্ষার্থীরা। `নিজের এলাকাকে ভালোবাসুন' এই বার্তা ছড়িয়ে দেয়ার লক্ষ্যে কাউন্সিল কিছু দিন পর পর এই পরিচ্ছন্ন

বিস্তারিত

0 Comments

Add new comment