আজ : ০৫:১১, মার্চ ২৩ , ২০১৯, ৯ চৈত্র, ১৪২৫
শিরোনাম :

পুনর্বহালের ৪৮ ঘণ্টার মাথায় বরখাস্ত হলেন ভারতের সিবিআই প্রধান


আপডেট:০৮:২৬, জানুয়ারি ১১ , ২০১৯
photo

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে সিবিআই প্রধান পদটি ফিরে পেয়েছিলেন অলোক বর্মা। তাঁর ভাগ্য নির্ধারণের জন্য দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে নির্বাচনী প্যানেলকে। এদিন সেই প্যানেলের বৈঠকেই স্থির হয়েছে যে অলোক বর্মাকে সিবিআই প্রধান পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হচ্ছে। যার অর্থ ক্ষমতা ফিরে পাওয়ার ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে ফের ক্ষমতাচ্যুত হলেন অলোক বর্মা। তার জায়গায় আবারও অন্তর্বর্তীকালীন পরিচালক হলেন এম নাগেশ্বর রাও। গত ২৪ ঘণ্টায় অলোক বর্মা বদলির নির্দেশ পাওয়া ১০ অফিসারকে সরিয়ে দেন। একইসঙ্গে ৫ জন অফিসারের বদলির নির্দেশ কার্যকর করেন।

গত বছরের অক্টোবর মাসে উপ-প্রধান রাকেশ আস্থানার সঙ্গে বিবাদের জেরে অলোক ভার্মাকে সিবিআই প্রধানের পদ থেকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়। আস্থানাকেও সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। সরকারের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে শীর্ষ আদালতের শরণাপন্ন হন ভার্মা। মঙ্গলবার (৯ জানুয়ারি) ভারতের সুপ্রিম কোর্ট ভার্মাকে দায়িত্বে পুনর্বহাল করে। তবে আদালতের পক্ষ থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়, কোনও নীতিগত সিদ্ধান্ত নিতে পারবেন না তিনি। একইসঙ্গে আগামী ৩১ জানুয়ারি অবসর নিতে চলা অলোক ভার্মা সিবিআই পরিচালক পদে থাকতে পারবেন কিনা সে সিদ্ধান্ত নির্বাচনি কমিটির হাতে ছেড়ে দেয় আদালত।

এই কমিটিতে ছিলেন ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিসহ সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ ও লোকসভার বিরোধী দলনেতা মল্লিকার্জুন খারগে। শেষ মুহূর্তে বিচারপতি গগৈ সরে দাঁড়ান। তার জায়গায় দায়িত্ব দেন বিচারপতি একে সিকরিকে। পদে ফেরার ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে ৫ কর্মকর্তাকে বদলি করার নির্দেশ দেন ভার্মা। পাশাপাশি, ১০ কর্মকর্তাবে বদলির নির্দেশ রদ করেন তিনি। এ নিয়ে সরকারের মধ্যে অসন্তোষ তৈরি হয় বলে গুঞ্জন রয়েছে।

বৃহস্পতিবার মোদির নেতৃত্বাধীন নির্বাচনি কমিটি বৈঠকে বসে। সেখানে অলোক ভার্মাকে পদ থেকে সরিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। একমাত্র ভার্মাকে অপসারণের বিরোধিতা করেন মল্লিকার্জুন খার্গে।



সাম্প্রতিক খবর

এবার চালক-হেলপার মিলে সিকৃবি শিক্ষার্থী ওয়াসিমকে বাসচাপা দিয়ে হত্যা

photo সিলেট প্রতিবেদক: ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের শেরপুরে বাস থেকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (সিকৃবি) এক শিক্ষার্থীকে হত্যা করেছে বাসটির চালক ও তার সহকারী।নিহত ছাত্রের নাম ওয়াসিম আফনান। তিনি সিকৃবির বায়োটেকনোলজি অ্যান্ড জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং ডিপার্টমেন্টের চতুর্থ বষের ছাত্র। তার বাড়ি হবিগঞ্জে নবীগঞ্জ উপজেলার দেবপাড়া ইউনিয়ন রুদ্র গ্রামে। তার বাবার নাম মো. আবু জাহেদ

বিস্তারিত

0 Comments

Add new comment