আজ : ০৮:৪৪, জুন ২৩ , ২০১৮, ৯ আষাঢ়, ১৪২৫
শিরোনাম :

কুকুর হইতে সাবধান • BEWARE OF DOG •


আপডেট:১২:০৩, সেপ্টেম্বর ৮ , ২০১৭
photo

মোহাম্মেদ এ আজিজঃ শিরোনামটির সাথে তুঘলঘি নগর ও গ্রামবাসীর অনেক সৈখ্যতা রয়েছে । বিশেষ করে উচ্চবিত্ত, মধ্যবিত্ত এমনকি অসৎ উপায়ে অর্জিত নব্য ধনবানদের সৈখ্যতাতো দর্শনীয় এবং ব্যয় বহুল । শহর, বন্দর, গ্রাম-গন্জে গড়ে উঠা প্রায় সকল আলীশান বাড়ীর ফটকে মর্মর পাথরে বা কারুকার দিয়ে বোর্ড বানিয়ে " কুকুর হইতে সাবধান " বানীটি শেটে দেওয়া হয় । এমনকি অনেক কীর্তিমান প্রবেশ ফটকে কুকুরের ফটো ঝুলিয়ে রাখেন। যে তুঘলঘি নগরে লক্ষ কোটি মানুষ অনাহারে-অর্ধাহারে জীবন যাপন করে সে দেশে লক্ষীনারায়ণের আর্শিবাদে অর্থবিত্তে ধনবান ও ক্ষমতাবানগণ পোষা কুকুরের জন্য আমদানী করা খাবারের ব্যবস্থাও করে থাকেন । সবই করা হয় মুনিবের জানমালের নিরাপত্তার নামে। কোন আগন্তক বা ফকির মিসকিন যদি, বাড়ীর মালিকের সন্ধানে বা দান-খায়রাত ও ভিক্ষার জন্য প্রবেশ করে, তাহলে তাদের পরতে হয় মহাবিপদে । যমদূতের মত এসে সামনে দাড়ীয়ে ঝাপটে ধরে, সুতীব্র চিৎকারে ঘেউ ঘেউ শুরু করে মনিবকে জানান দেয়। কোন কোন উগ্র মেজাজি "Shiba Inu " নামের কুকুর ( যার চারিত্রিক বৈশিষ্ট হল পিছন থেকে বণ্য শুকর শিকার করে মনিবের চরনে মাথানত করা ) এবং ভয়ঙ্কর ও আক্রমনাত্মক অর্থাৎ very dangerous and aggressive Rottweiler, Extremely tempered ( বদমেজাজী ) Pit Bull, Bull dog বা German Shepard নামের কুকুর ঘেউ ঘেউ করে যমদূতের মত আক্রমন করে বসে । ফলে আগন্তক বা ভিক্ষুকের যেতে হয় বদ্যখানায় এমন কি র্মাগেও । এছাড়াও মনিবের পদতলে ঘূর ঘূরকারী Poodle এবং বিশ্বস্হ পারিবারিক Pointer কুকুর আগন্তুকে দেখে ও গন্ধ শুকে মনিবের কান ভারী করে দেয় । এই সকল নানা প্রজাতির কুকুরের তান্ডব এবং মনিবের প্রতি অবনত মস্তকে আনুগত্য দেখে মনিব তুষ্ট হন । সুযোগ-সুবিধা দিয়ে তাদেরকে পুরস্কৃত করেন ।

গ্রাম-বাংলার হাটে বাজারে আবার বিভিন্ন রঙ্গ, ঢং ও মেজাজের কুকুর দল বেধে চলাফেরা করে । ভাদ্র মাস হলেই মানুষ থাকে আতঙ্কে । এখন নাকি বার মাসই বদমেজাজী আক্রমনাত্মক কুকুরের ভয়ে জনপদ সন্ত্রস্ত থাকে । এই সকল কুকুরের হাট-বাজারে ও খোলা ময়দানে অসামাজিক কাজ করা তাদের চারিত্রিক বৈশিষ্টও বটে । আজ কাল মানুষ্যকূলে তাদেরই ব্বংশবদগণ নিরাপদ স্হানে, শিক্ষা-প্রতিষ্ঠানে, কর্মস্থলে এমনকি ঘরবাড়ীতে জঘণ্য পশুরা বলাৎকার করে অসহায় নারীদেরকে মেরেও ফেলে । বিচারের বাণী নিরবে নিভৃতে কাঁদে !

পার্থিব জগতে নিজের সুখ, শান্তি, যশ- প্রতিপত্তি ও ধনবান হওয়ার মানষে ক্ষমতাবান মনিবদের দৃষ্টি আকর্ষন এবং আনুকুল্য প্রাপ্তির আশায় মানুষ্যকূলের বিভিন্ন পেশার কিছু লোভী, মেরুদন্ড ও ব্যাক্তিত্বহীন মানুষও নানা প্রজাতীর কুকুর যথা পোডল ডগ, শীবা-ইনূ, বুলডগ, বুল টেরিয়ার, পিটবুল, রটওলিয়ার, হাস্কি, জার্মান শেপার্ট, চৌ, বক্সার, পয়িন্টার, আকিটাস, ডোভারম্যান পিন্চার্সের মত আচরন করে । ওরা তোঘলগী নগরের উন্নোয়ন ও নিয়োগ পক্রিয়ায় সিন্ডিকেট গড়ে তোলে মাস্তানী করে । শহরের সাথে সাথে ভিলেজ পলিটিক্সেও বিষবাস্প ছড়িয়ে দেয় । ঘেউ ঘেউ করে জ্বি হুজুর, জ্বি হুজুর ডাকতে ভিন্ন মতালম্বীদেরকে বাধ্য করে । অনুগত না হলেই কামড় দেয় বা যমদূতের মত সাদা ধপ ধপে কাপড় পড়ে রাতের অন্ধকারে দরজার কড়া নারে । চোখ বেঁধে তোলে নিয়ে ডিম থেরাপি দেয় । অরৈণ্যে ফেলে দেয় । ক্রস ফায়ারে মৃত্যুর নাটক মঞ্চস্থ করে। কার পিছনে কোন প্রজাতির কুকুর লেলিয়ে দিতে হবে তা নির্ধারন করা হয় স্বয়ং মুনিবের ইশারায় ।

মুনিবের আর্শিবাদে টেলিভিশন বির্তক অনুষ্ঠান মালায়ও এদের বিচরন আছে । সেখানে তারা মুনিবের বন্ধনা গায়, পুজা আর্চনা করে । মুনিবের বিরোদ্ধে প্রতিপক্ষের কেউ কোন আওয়াজ করলেই ওরা সমস্বরে ঘেউ ঘেউ শুরু করে । দর্পনেও এদের একই রুপ। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুক, টুইটারও একই অবস্থা। প্রশাসনিক কার্য্যালয়, বিচারালয়, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, জাতীয় বিবেকের কার্যালয়েও চলে এদের মাস্তানী ঘেউ ঘেউ। ভয়ঙ্করভাবে ঘেউ ঘেউ করাটাই এদের যোগ্যতা। যে যতবেশী ও ভয়ানকভাবে আওয়াজ করবে তাদের অবস্থান ততবেশী পাকাপোক্ত হয়। তত বেশী সুবিধা ভোগ করে। পোডল, পয়ন্টিয়ার ও ডোভারম্যান পিন্চার জাতীয়রা মুনিবের সাথে বিদেশেও ঘূরে বেড়ায় । যারা কৌশল করে হুঙ্কার ছাড়ে বা ঘেউ ঘেউ করে তাদেরকে মুনিবের বুদ্ধিজীবি আসরে স্থান দেওয়া হয় । ঘেউ ঘেউ করে প্রতিপক্ষকে চেতনা বিরোধী ও জঙ্গী বানানোর দায়ীত্ব এদের। স্বগোত্রীয় সেবক খুনী হলে, জঙ্গী হলে, ঋণ খেলাপী, ব্যাংক ডাকাত বা দূর্নীতিবাজ হলে গলাবাজি করে মুনিবের স্বার্থে এদেরকে বাঁচাতে হবে । জবরদস্তি করে রাজতন্ত্রের মত মুনিবতন্ত্র কায়েম করতে যারা বেশী ঘেউ ঘেউ করে তাদেরকে পুরস্কৃত করা হয় ততবেশী । মুনিবের বিশ্বস্ত চারপায়া ভৃত্য কুকুর হিসাবে যাদের ব্বংশানুক্রমিকভাবে মুনিব তোষামোদ ও খেদমত করার রেকর্ড রয়েছে তাদের জ্ঞানকে সমৃদ্ধ করার জন্য বিঁভিন্ন প্রতিষ্ঠানে, গণমাধ্যমে, দূতাবাসে নিয়োগ এবং উচ্চতর প্রশিক্ষনের সুযোগ দেওয়া হয় এবং রং বেরঙ্গের খেতাবে ভূষিত করা হয় ।

মুনিবের কৃপায় ও তোষামোদ করনে মধ্যপ্রাচ্যে, কানাডা, অষ্ট্রেলিয়া, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য সহ সাড়া বিশ্বে ছড়িয়ে থাকা পোডল, পিটবুল, সীবা ইনুর বংশধরেরা সমস্বরে ঘেউ ঘেউ করে পরিবেশ দুষন করে চলেছে । শুধু তাই নয় কামড়া কামড়ি করে শিল্পন্নোত দেশের জনপদেও রক্তাক্ত করে তুলেছে। এদের আরেকটি চরিত্রও রয়েছে। তা'হলো- মুনিব বা মালিক বদল হলে এদেরও রুপ বদল হয় । অতীত ইতিহাসে তার স্বাক্ষর রয়েছে । তোঘলগী নগরের মুনিব যদি সর্তক না হন তাহলে ভয়ঙ্কর নির্দয় মুনিব ও তার কুকুর ছানাদেরকে মোকাবিলা করে তাড়াতে অভয় নগরের অগ্রজের দীক্ষা দেওয়া পথেই আতঙ্কগ্রস্ত ও আক্রান্তরা এগিয়ে যাবে। গ্রামেগন্জে যে ভাবে আতঙ্কগ্রস্ত ও আক্রান্তরা এক হয়ে চারপায়া জন্তুর পাচায় তরল পদার্থ ঢেলে দিয়ে দৌড়ায় সে পথের সন্ধান করতে শুরু করবে। অথবা ভাদ্র মাসে পৌরসভা বা সিটি কর্পোরেশন যে ভাবে বণ্য ও পাগলা কুকুর নিধন করে সে পথেই এগিয়ে যাবে।

লেখকঃ কমিউনিটি এক্টিভিস্ট ও পলিটিকাল এনালিস্ট

(মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নন)

Posted in মতামত


সাম্প্রতিক খবর

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলা: দ্রুত শুনানি চেয়ে আবেদন করবে দুদক

photo ঢাকা সংবাদদাতা: আপিল বিভাগের নির্দেশনা অনুসারে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার দ্রুত আপিল শুনানি চায় দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। আগামীকাল রবিবার (২৪ জুন) হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট বেঞ্চে কমিশনের পক্ষ থেকে এ-সংক্রান্ত আবেদন করা হবে। শনিবার (২৩ জুন) দুদক আইনজীবী খুরশীদ আলম খান এ তথ্য জানান।খুরশীদ আলম খান বলেন, ‘জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় বিচারিক আদালতের ৫ বছরের কারাদণ্ডাদেশের

বিস্তারিত

0 Comments

Add new comment